"ইসলাম ধর্ম" বিভাগে করেছেন
পর্দা সম্পর্কে আল্লাহ কী নির্দেশ দিয়েছেন পর্দা করা কী প্রত্যেক ব্যক্তির জন্য ফরজ ?এই প্রসঙ্গে কুরআন ও হাদিস এ আল্লাহ কী বক্তব্য ব্যক্ত করেছেন বিস্তারিত ভাবে জানতে চাই ?


1 উত্তর

0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
করেছেন

পর্দা করা কী ? পর্দা কেন করতে হয় ?


পর্দা ইসলামের গুরুত্বপূর্ণ একটি বিধান। কোরান মজিদের কয়েকটি সূরায় পর্দা-সংক্রান্ত বিধান দেওয়া হয়েছে এবং এ বিষয়ে রয়েছে অসংখ্য হাদিসে রাসুল।পর্দার বিষয়ে আল্লাহ তাআলা সকল শ্রেণীর ঈমানদার নারী-পুরুষকে সম্বোধন করেছেন। নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে আদেশ করেছেন তিনি যেন তাঁর স্ত্রীদেরকে, কন্যাদেরকে এবং মুমিনদের নারীদেরকে চাদর দ্বারা নিজেদেরকে আবৃত রাখার আদেশ দেন। কিছু আয়াতে উম্মুল মুমিনীনদেরকেও সম্বোধন করেছেন, কোনো কোনো আয়াতে সাহাবায়ে কেরামকেও সম্বোধন করা হয়েছে। মোটকথা, কোরান মজিদ অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে মুসলিম নারী ও পুরুষের জন্য পর্দার বিধান বিবৃত হয়েছে। পর্দা ইসলামি শরিয়তের একটি ফরজ বিধান। এ বিধানের প্রতি সমর্পিত থাকা ঈমানের দাবি। মুসলমানিত্বের পরিচয়। কিন্তু বেদনার বিষয় এই যে, পশ্চিমা সভ্যতা ও সংস্কৃতির প্রভাবে আমাদের ‘মুসলিম-সমাজ’ এতটাই প্রভাবিত হয়ে পড়েছে যে, কোরান ও সুন্নাহর বিধানও তাদের কাছে অপরিচিত ও অপ্রয়োজনীয় আকার ধারণ করছে। পর্দা বিধানটি আজ নানাবিদ ষড়যন্ত্র এবং নানাবিদ সমস্যা জর্জরিত। খোদ মুসলিমদের দ্বারাই লঙ্ঘিত আজ পর্দার প্রকৃত বিধান। এই সব মুসলমানদের কে বোঝাবে যে এটা নিজের পায়ে কুঠারাঘাতের শামিল। ইসলামের এই বিধানটি শুধু আমাদের আখেরাতে নাজাতেরই উপায় নয়, আমাদের দুনিয়ার জীবনের শান্তি, স্বস্থি ও পবিত্রতারও রক্ষাকবচ। কিন্তু ইসলাম সম্পর্কে অজ্ঞতা ও বিভিন্ন অপপ্রচারকারীদের প্রচারণায় প্রভাবিত হয়ে আমরা নিজেদের আর্দশ ত্যাগ করে ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে উপনীত হয়েছি। ইসলামি শরিয়তের মাধ্যমে নারীরা অনেক বড় নিয়ামত, দয়া, সহানুভূতি ও উপকার লাভ করেছে। যেমন- ইসলাম নারীদের ইজ্জত সম্মান ও পুত-পবিত্রতা রক্ষা করেছে এবং তাদের সম্ভ্রম রক্ষার গ্যারান্টি দিয়েছে। ইসলাম নারীদের উচ্চ মর্যাদার আসন দিয়েছে, তাদের অধিকার প্রতিষ্ঠা করেছে। কিন্তু নারীদের জন্য ইসলাম লেবাস-পোশাক, সৌন্দর্য প্রদর্শন ও চলাফেরা ইত্যাদির ক্ষেত্রে যে সব বিধি-নিষেধ ও নিয়ন্ত্রণ আরোপ করেছে, তা শুধু সামাজিক অনিষ্টতা ও ফেতনা ফ্যাসাদ থেকে বাঁ‍চার যাবতীয় উপায় উপকরণের পথকে বন্ধ করার নিমিত্তে এবং মহান আল্লাহ তাআলার সন্তুষ্টি অর্জন করার উদ্দেশ্যেই করেছে। নারীদের প্রতি অবিচার কিংবা কোন প্রকার বৈষম্য সৃষ্টির জন্য করেনি। ইসলাম তাদের জন্য বিধি-নিষেধ আরোপ করে তাদের স্বাধীনতা হরণ করা কিংবা তাদের গৃহবন্দী করার জন্য করেনি বরং, তারা যাতে তাদের জীবনে চলার পথে চরম অবনতি ও অপমানের খপ্পরে না পড়ে এবং তারা যাতে মানুষের দৃষ্টির লক্ষ্য বস্তুতে পরিণত না হয়, তা থেকে বাঁচানোর জন্য ইসলাম এই বিধি-নিষেধ ও পর্দার বিধান প্রদান করেন। সবার আগে ভালো ভাবে জানতে হবে প্রকৃতরুপে পর্দা কাকে বলে? কেননা এছাড়া পর্দার উদ্দেশ্য, প্রয়োজনীয়তা এবং তার উপকারিতা-অপকারিতা সম্যকরূপে উপলব্ধি করতে হবে। পর্দা আরবি ‘হিজাব’ শব্দের বাংলা ও উর্দূ তরজমা। কোরান মজিদের যে আয়াতে মুসলমানদের আল্লাহ তাআলা রাসূলে করিম [সা.] -এর ঘরে নিঃসংকোচে ও বেপরোয়াভাবে যাতায়াত করতে নিষেধ করেছেন, তাতে এ ‘হিজাব’ শব্দই উল্লেখ করা হয়েছে। আল্লাহ তাআলা ইরশাদ করেছেন যে, যদি ঘরের স্ত্রীলোকদের নিকট থেকে তোমাদের কোন জিনিস নেওয়ার প্রয়োজন হয়, তাহলে তা হিজাবের আড়াল থেকে চেয়ো।(সূরা আহযাব-৫৩) মূলত আল-কোরানের এ নির্দেশ থেকেই ইসলামি সমাজে পর্দার সূচনা হয়। অতপর এ প্রসংগে আর যত আয়াতই নাজিল হয়েছে, তার সমষ্টিকে আহকামে ‘হিজাব’ বা পর্দার বিধান বলা হয়েছে। পবিত্র কোরানের সূরায়ে নূর ও সূরায়ে আহযাবে এ সম্পর্কিত নির্দেশাবলী বিস্তারিত বর্ণিত হয়েছে। এ সব আয়াতে বলা হয়েছে যে, মহিলারা যেন তাদের মর্যাদা সহকারে আপন ঘরেই বসবাস করে এবং জাহেলি যুগের মেয়েদের মতো বাইরে নিজেদের রূপ সৌন্দর্যের প্রদর্শনী করে না বেড়ায়। একান্ত যদি তাদের ঘরের বাইরে যাবার প্রয়োজন হয়, তবে আগেই যেন চাদর (কাপড়) দ্বারা তারা নিজেদের দেহকে আবৃত করে নেয় এবং ঝংকারদায়ক অলংকারাদি পরিধান করে ঘরের বাইরে না যায়। ঘরের ভেতরেও যেন তারা মাহরাম (যার সংগে বিয়ে নিষিদ্ধ) পুরুষ ও গায়রে মাহরাম পুরুষের মধ্যে পার্থক্য সৃষ্টি করে এবং ঘরের চাকর ও মেয়েদের ব্যতীত অন্য কারো সামনে যেন জাঁকজমকপূর্ণ পোশাক পরে না বেরোয়। অতঃপর মাহরাম পুরুষদের সামনে বের হওয়া সম্পর্কেও এ শর্ত আরোপ করা হয়েছে যে, তারা বেরোবার পূর্বে যেন কাপড়ের আঁচল দ্বারা তাদের মাথাকে আবৃত করে নেয় এবং নিজেদের সতর লুকিয়ে রাখে।  

প্রশ্ন-উত্তরে অংশগ্রহণ করে অর্থ উপার্জন জন্য এখানে নিবন্ধন করুন, বিস্তারিত জন্য এখানে প্রবেশ করুন

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর 116 বার প্রদর্শিত

5.3k টি প্রশ্ন

4.9k টি উত্তর

130 টি মন্তব্য

513 জন সদস্য

প্রশ্ন করুন
ক্যোয়ারী অ্যানসারস এ সুস্বাগতম, এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন, বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
ক্যোয়ারী অ্যানসারস এ প্রকাশিত সকল প্রশ্ন বা উত্তরের দায়ভার একান্তই ব্যবহারকারীর নিজের, কোনভাবেই ক্যোয়ারী অ্যানসারস দায়বদ্ধ নয়।
...