"ইসলাম ধর্ম" বিভাগে করেছেন

আমি জাহিদ হাসান। পেশায় মেরিন ইঞ্জিনিয়ার। মেরিনার হওয়ায় আমাকে সমুদ্রে জাহাজে করে সারা বিশ্ব ভ্রমণ করতে হয়। কিন্তু যখন আমি সমুদ্রযাত্রা করি, এক দেশ থেকে আরেক দেশে পৌঁছাতে আমার ২০ থেকে ৪০ দিন সময় লাগে। আমার প্রশ্ন হচ্ছে, এ সময় আমি কি নামাজ কসর করব নাকি সাধারণভাবেই নামাজ আদায় করব?

1 উত্তর

0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
করেছেন

যত দিন পর্যন্ত আপনি জাহাজে থাকবেন, তত দিন আপনি মুসাফির অবস্থায় থাকবেন এবং তত দিন পর্যন্ত আপনি কসর করতে পারেন। এতে অসুবিধা নেই। আপনার জন্য এই কসর করা বৈধ, যেহেতু আপনি মুসাফির অবস্থায় থেকে যাচ্ছেন। কারণ আপনি সুনির্দিষ্ট কোনো গন্তব্যে যাচ্ছেন না। সাগরে ঘুরে বেড়াচ্ছেন ২০ থেকে ৪০ দিন। সুতরাং এ অবস্থায় সব সময় আপনি মুসাফির হিসেবে থাকবেন, আপনার জন্য কসর করা বৈধ।

যেমনিভাবে কসর করা বৈধ, ঠিক তেমনিভাবে দুই ওয়াক্ত সালাত একসঙ্গে আদায় করাও আপনার জন্য বৈধ। জোহর ও আসর আপনি একসঙ্গে আদায় করতে পারবেন। মাগরিব ও এশা আপনি একসঙ্গে আদায় করতে পারবেন। যদি মনে করেন যে কাজের ব্যস্ততার কারণে হয়তো সুযোগ পাবেন না, আপনি একসঙ্গে আদায় করতে পারেন। দুটিই আপনার জন্য বৈধ।

প্রশ্ন-উত্তরে অংশগ্রহণ করে অর্থ উপার্জন জন্য এখানে নিবন্ধন করুন, বিস্তারিত জন্য এখানে প্রবেশ করুন

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

5.3k টি প্রশ্ন

4.9k টি উত্তর

130 টি মন্তব্য

513 জন সদস্য

প্রশ্ন করুন
ক্যোয়ারী অ্যানসারস এ সুস্বাগতম, এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন, বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
ক্যোয়ারী অ্যানসারস এ প্রকাশিত সকল প্রশ্ন বা উত্তরের দায়ভার একান্তই ব্যবহারকারীর নিজের, কোনভাবেই ক্যোয়ারী অ্যানসারস দায়বদ্ধ নয়।
...