38 বার ভিউ
"ইসলাম ধর্ম" বিভাগে করেছেন
জিকির করার জন্য অনেকে গণনার ডিভাইস ব্যবহার করেন। এটা কি ঠিক?  এ সম্পর্কে ইসলাম যে কথা বলেছে তার বিস্তারিত জানতে চাই ?


2 উত্তর

0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
করেছেন

জিকিরের জন্য ডিভাইস ব্যবহার আসলে অত্যাধুনিক ব্যবস্থা আর কী। এটি অত্যাধুনিক সংযোজন। ডিভাইসের আগে ছিল দানা, পাথর দানা অথবা আমরা যেটাকে বলি তাসবিহ, আরবিতে বলা হয় মুসাব্বিহা ইত্যাদি। এগুলো ডিভাইসের আগে ছিল। এখন ডিভাইস নতুন এসেছে, ডিজিটাল হয়েছে।
তবে দুটাই মূলত একেবারেই অপ্রয়োজনীয়। আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের প্রশংসার জন্য গণনা করার প্রয়োজন নেই। কারণ আল্লাহতায়ালা তো নেয়ামত দিচ্ছেন, ‘যদি তোমরা আল্লাহতায়ালার নেয়ামতসমূহকে গণনা করার চেষ্টা করো, গণনা করতে শুরু করো, সেগুলো তোমরা গণনা করে শেষ করতে পারবে না।’ 
অসংখ্য, অগণিত নেয়ামত দিচ্ছেন যিনি, সে আল্লাহ রাব্বুল আলামিনকে জিকিরের সংখ্যা হাতে গণনা করার কোনো দরকার নেই। বরঞ্চ এই ডিভাইস ব্যবহার না করে গণনা করার বিষয় যেখানে আসবে, সেখানে রাসূল (সা.)-এর হাদিস, অর্থাৎ রাসূল (সা.)-এর হেদায়েত বা নির্দেশনা হচ্ছে, আঙুলের করের সাহায্যে গণনা করা। রাসূল (সা.) আঙুলের করগুলোর মাধ্যমে গুনতেন। রাসূল (সা.) বলেছেন, ‘এই আঙুলের করগুলো কেয়ামতের দিন আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের তাসবিহর সাক্ষ্য দেবে।’ সুতরাং সুন্নাহর অনুসরণ করাটাই হচ্ছে উত্তম কাজ। 

0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
করেছেন

 কোট, প্যান্ট, টাই এগুলো পরলে গুনাহ হবে মর্মে কোনো হাদিস, কোনো দলিল, কোনো রেওয়ায়েত বা ফতোয়া কোথাও কিছু আসেনি। তবে পোশাকের সুনির্দিষ্ট যে কোড রয়েছে, তার মধ্যে একটি বিষয় স্পষ্ট। সেটা হচ্ছে এই, মানুষ যে পোশাকগুলো পরবে, তার মধ্যে যেগুলো সতরের সঙ্গে সম্পৃক্ত, সেগুলো একটু ঢিলেঢালা হবে, যাতে করে এমন টাইট ফিটিং না হয় যে অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ দেখা যায়। এটা পোশাক পরেও উলঙ্গ থাকার মতো। যদি এমনটিই হয়, রাসূলুল্লাহ (সা.) নিষেধ করেছেন। হাদিসের মধ্যে বলেছেন যে, তারা পোশাক পরিহিত হবে, কিন্তু তারা উলঙ্গ।

এ জন্য পোশাকের যে ইসলামিক কোড রয়েছে, সেই কোড লঙ্ঘন করলে আপনার সতরও ঢাকা হবে না, পোশাক পরাও হবে না। এই পোশাক পরলে গুনাহের কাজ হবে। কিন্তু কেউ যদি প্যান্ট পরেন, আর সেই প্যান্ট যদি ঢিলেঢালা হয়, স্বাভাবিকভাবে অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ দেখা না যায়, তাহলে এতে কোনো নিষেধাজ্ঞা নেই।

অনুরূপভাবে টাইও এক ধরনের পোশাক। এটি হারাম কোনো পোশাক নয় যে নিষিদ্ধ হবে। কোনো অঞ্চলে এটা সৌন্দর্যের জন্য বা শীতের জন্য পরা হতে পারে।

পোশাকের দুটি দিক রয়েছে। আল্লাহতায়ালা কোরআনে কারিমে পোশাকের দুটি দিকের কথা বলেন, ‘এমন পোশাক তোমাদের জন্য আমি অবতীর্ণ করেছি, যা দিয়ে তোমাদের ইজ্জত আব্রু ঢাকা থাকবে।’ আর দ্বিতীয় দিকটি হলো, ‘এর মাধ্যমে তোমরা সৌন্দর্য গ্রহণ করতে পারবে।’

সুতরাং কিছু কিছু পোশাক আছে, যেগুলো সৌন্দর্যের বিষয়। টাইও এ ধরনের একটি পোশাক, যা বিভিন্ন সমাজের মধ্যে প্রচলন হয়েছে।

আপনার বিভিন্ন সমস্যার সমাধান বা অজানা উত্তরের জন্য বিনামূল্যে আমাদের প্রশ্ন করতে পারবেন। প্রশ্ন করতে দয়া করে প্রবেশ, কিংবা নিবন্ধন করুন।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

9.6k টি প্রশ্ন

7.5k টি উত্তর

250 টি মন্তব্য

1.2k জন সদস্য

প্রশ্ন করুন
ক্যোয়ারী অ্যানসারস এ সুস্বাগতম, এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন, বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।

বিভাগসমূহ

ক্যোয়ারী অ্যানসারস এ প্রকাশিত সকল প্রশ্ন বা উত্তরের দায়ভার একান্তই ব্যবহারকারীর নিজের, কোনভাবেই ক্যোয়ারী অ্যানসারস দায়বদ্ধ নয়।
...