140 বার ভিউ
"ইসলাম ধর্ম" বিভাগে করেছেন

কসর নামাজ সম্পর্কে আমাকে জানাবেন? স্থায়ী ঠিকানা যেমন— বাবার বাড়ি বা শ্বশুরবাড়িতে অল্প কিছুদিনের জন্য গেলে কি কসর পড়তে হবে? আমার শ্বশুরবাড়ি ঢাকার বাইরে।

1 উত্তর

0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
করেছেন

যদি কোনো ব্যক্তি সফর অবস্থায় থাকেন, তার জন্য ইসলামের বিধান হচ্ছে তিনি সালাত কসর করবেন। এর অর্থ হচ্ছে তিনি চার রাকাত বিশিষ্ট যে সালাতগুলো আছে, সেগুলোর দুই রাকাত আদায় করবেন। শুধু কসর চার রাকাত বিশিষ্ট সালাতের মধ্যে। দুই রাকাত অথবা তিন রাকাত বিশিষ্ট যে সালাতগুলো আছে, যেমন সালাতুল মাগরিব, সালাতুল ফজর, এর কোনো কসর নেই। অর্থাৎ এটাকে অর্ধেক করার কোনো সুযোগ নেই। সুতরাং শুধু আসর, এশা এবং জোহরের ওয়াক্তে আপনি কসর করবেন। তবে আপনাকে সফররত থাকতে হবে।

সফররত অবস্থা দুটি— একটি হচ্ছে আপনি গাড়িতে সফর করে আছেন। তখন আপনি মুসাফির। যেখানেই আপনি যান না কেন, তখন আপনি কসর করবেন। দ্বিতীয় হচ্ছে আপনি এমন দূরত্ব অতিক্রম করেছেন, যে দূরত্ব অতিক্রম করলে স্বাভাবিকভাবেই সফর বলা হয়ে থাকে। যেমন— এক জেলা থেকে আরেক জেলা বা এক এলাকা থেকে আরেক এলাকায় আপনি গেছেন। তাহলে সেটা আপনার জন্য সফর। তখন আপনি কসর করবেন।

আর আপনি যদি নিজের ব্যক্তিগত বাড়িতে যান, সেখানে আপনার আত্মীয়স্বজন সবাই আছে, বাড়িতে থাকার ব্যবস্থা আছে, খাওয়ার ব্যবস্থা আছে, তাহলে সেখানে গেলে আপনি মুসাফির হবেন না। বাড়িতে গলে মুকিমই। একামতের নিয়ত করবেন। সেখানে আপনি সালাত পরিপূর্ণরূপে আদায় করবেন, যেহেতু আপনি নিজের বাড়িতে গেছেন। সুতরাং সেখানে আপনাকে কসর করতে হবে না।

তেমনিভাবে কেউ যদি নিজের শ্বশুরবাড়িতে যায়, আর যদি সেখানে সব কিছুর ব্যবস্থাপনা থাকে, তাহলে তিনি কসর করবেন না। কারণ হলো তিনি নিজের পরিবারের কাছে গেছেন। কিন্তু যদি এমন হয় যে, শ্বশুরবাড়িতে গেছেন, সেখানে তেমন কোনো ব্যবস্থাপনা নেই, থাকার ব্যবস্থা নেই, পরিবারের কেউ নেই, সবাই সেখানে বাইরের অথবা নিজেই গেছেন সেখানে মুসাফিরের মতো, যদি এমনটি হয়ে যায় তাহলে তিনি মুসাফির। কারণ সেখানে যদি কোনো ব্যবস্থাপনা না থাকে পরিবার বা আত্মীয় বলতে কেউ না থাকে, তাহলে সেখানে তিনি মুসাফিরই। তাহলে সেখানে তিনি কসর করবেন।

আর এক জেলা থেকে আরেক জেলার দূরত্ব সফরের জন্য, ওলামায়ে কেরাম এ নিয়ে যথেষ্ট এখতেলাফ বা মতবিরোধ করেছেন। কেউ তিন মাইলের কথা উল্লেখ করেছেন, কেউ ১৬ মাইলের কথা উল্লেখ করেছেন, কেউ ৪৮ মাইলের কথা উল্লেখ করেছেন। আবার কেউ ৫৪ মাইলের কথা উল্লেখ করেছেন। অনেক বক্তব্য ওলামায়ে কেরামের আছে। প্রত্যেকটি বক্তব্যই মূলত ইজতেহাদ নির্ভর। কিন্তু মোদ্দা কথা হচ্ছে, যেটাকে সফর বোঝায়, এক জেলা থেকে আরেক জেলায় স্বাভাবিকভাবে যখন কোনো ব্যক্তি সফর হিসেবে গ্রহণ করে থাকে, সেই সফর যদি কেউ করে থাকে, তাহলে তিনি মুসাফির। তখন তিনি কসরের নিয়তে সালাত আদায় করবেন। এটাই তার জন্য ইসলামী শরিয়তের বিধান।

এমনকি নিজ বাড়িতে গেলেও যদি কোনো ধরনের থাকা-খাওয়ার ব্যবস্থা না থাকে, তাহলে সেখানেও তিনি যাবেন মুসাফির হিসেবে। সেখানেও তিনি কসর আদায় করবেন।

আপনার বিভিন্ন সমস্যার সমাধান বা অজানা উত্তরের জন্য বিনামূল্যে আমাদের প্রশ্ন করতে পারবেন। প্রশ্ন করতে দয়া করে প্রবেশ, কিংবা নিবন্ধন করুন।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

9.6k টি প্রশ্ন

7.5k টি উত্তর

250 টি মন্তব্য

1.2k জন সদস্য

প্রশ্ন করুন
ক্যোয়ারী অ্যানসারস এ সুস্বাগতম, এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন, বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।

বিভাগসমূহ

ক্যোয়ারী অ্যানসারস এ প্রকাশিত সকল প্রশ্ন বা উত্তরের দায়ভার একান্তই ব্যবহারকারীর নিজের, কোনভাবেই ক্যোয়ারী অ্যানসারস দায়বদ্ধ নয়।
...