100 বার ভিউ
"ইসলাম ধর্ম" বিভাগে করেছেন

মোবাইলে কোরআন শরিফ রাখা যাবে কি বা তিলাওয়াত করলে সঠিক হবে কি? মোবাইলে যেহেতু বিভিন্ন ধরনের জিনিস থাকে, যেমন : ছবি, ভিডিও ইত্যাদি। সে ক্ষেত্রে মোবাইলে কোরআন শরিফ রাখা কি জায়েজ হবে?

1 উত্তর

0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
করেছেন

প্রথমত, মোবাইলে কোরআনে কারিম রাখা জায়েজ। কারণ হচ্ছে, কোরআনে কারিমসহ মোবাইলে মূলত আপনি সিমের মধ্যে (মেমোরি কার্ডে) যে জিনিসগুলো রাখছেন, এগুলো এমনভাবে সংরক্ষিত করা হয়েছে যে এর মধ্যে কোনো অস্তিত্ব তালাশ করে আপনি পাবেন না। এটা ভিন্ন কোনো জিনিস নয়। তাই এটি মূলত অত্যন্ত আধুনিক পদ্ধতিতে সংরক্ষণ করা হয়ে থাকে। এতে কোরআনে কারিমের সংরক্ষণের যে মর্যাদা রয়েছে, সে মর্যাদা ক্ষুণ্ণ হয় না। এটি সংরক্ষণ, তিলাওয়াত এবং শোনাও যাবে।

কোরআন তো আপনি সেখান থেকে বের করতে পারবেন না। এই জন্য এ পদ্ধতিটিই মূলত অত্যন্ত সূক্ষ্ম ও সুন্দর পদ্ধতি। কোরআনে কারিমকে আপনি সেখানে সংরক্ষণ করতে পারেন।

দ্বিতীয় হচ্ছে, সেখান থেকে আপনি কোরআন তিলাওয়াতও করতে পারেন। আপনি যখন মোবাইল খুলবেন, তখন চাইলেই যেকোনো সময় কোরআন তিলাওয়াত করতে পারছেন। আবার যখন বন্ধ করে দিলেন, তাহলে সেটি আর কোরআনে কারিম নয়, সেটি মোবাইল হিসেবে কাজ করবে। ফলে এটি আল্লাহর বান্দাদের জন্য আল্লাহ সুবানাহু তায়ালা যেসব জিনিসকে সহজ করে দিয়েছেন, তার মধ্যে একটি। যেমন : কেউ যদি কোরআনে কারিমকে বহন করতে চান, তাহলে তাঁকে অনেক কষ্ট করতে হয়। কিন্তু মোবাইলে হওয়ার কারণে এটা খুব সহজ হয়ে গেছে। তিনি কোরআনকে বহনও করতে পারছেন, সরাসরি কোরআন তিলাওয়াতও করতে পারছেন।

এ দুটিই জায়েজ, নাজায়েজ নয়।

আপনার বিভিন্ন সমস্যার সমাধান বা অজানা উত্তরের জন্য বিনামূল্যে আমাদের প্রশ্ন করতে পারবেন। প্রশ্ন করতে দয়া করে প্রবেশ, কিংবা নিবন্ধন করুন।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

9.6k টি প্রশ্ন

7.5k টি উত্তর

250 টি মন্তব্য

1.2k জন সদস্য

প্রশ্ন করুন
ক্যোয়ারী অ্যানসারস এ সুস্বাগতম, এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন, বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।

বিভাগসমূহ

ক্যোয়ারী অ্যানসারস এ প্রকাশিত সকল প্রশ্ন বা উত্তরের দায়ভার একান্তই ব্যবহারকারীর নিজের, কোনভাবেই ক্যোয়ারী অ্যানসারস দায়বদ্ধ নয়।
...